সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে করা অভিযোগ প্রত্যাহার দাবিতে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম

আশিক ইসলাম আশিক ইসলাম

রাবি প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৬:০৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৯, ২০২০

সংবাদ প্রকাশ করায় বাংলাদেশ প্রতিদিনের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি মর্তুজা নুরের নামে থানায় দায়েরকৃত মিথ্যা অভিযোগ প্রত্যাহার ও দৈনিক যুগান্তরের মানিক রাইহান বাপ্পীর বিরুদ্ধে আইসিটি অ্যাক্টের ৫৭ ধারায় দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহারে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ।

রোববার দুপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যারিস রোডে আয়োজিত মানববন্ধনে এ দাবি জানায় সাংবাদিকরা। এসময় নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে দাবি আদায় না হলে কঠোর কর্মসূচির পালনের ঘোষণা দেন তারা।

মানববন্ধনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি আরাফাত রহমান বলেন, এধরণের ঘটনা গোটা সাংবাদিক মহলের জন্য হুমকি স্বরূপ। মূলত অভিযুক্তদের কর্মকাণ্ড আড়াল করার চেষ্টা থেকে ক্যাম্পাসে কর্মরত সাংবাদিকদের হয়রানি করাই এ মামলার উদ্দেশ্য বলে মনে করি। এভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো পরিসরে সাংবাদিকেরা পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে যদি হয়রানির শিকার হতে হয় তবে অন্যান্য ক্যাম্পাসগুলোতেও সাংবাদিকতার পথ আরো সংকুচিত হয়ে যাবে। কাজের পরিবেশ রুদ্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হবে। তাই দ্রুত এই মামলাটি প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি। একই সাথে গ্রেপ্তার মানিক রাইহান বাপ্পীর নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।

রাবি সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহীন আলম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষক নানা ধরনের অন্যায় অপকর্মে লিপ্ত। এসব অন্যায়-অপকর্মগুলো যখন সাংবাদিকেরা তাদের লেখনির মাধ্যমে দেশের মানুষের কাছে তুলে ধরছে, তখনই তারা সাংবাদিকদের কন্ঠরোধ করতে থানায় মামলা, অভিযোগসহ নিজেদের স্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন উপায় অবলম্বন করছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে দুর্নীতিবাজরা বর্তমানে দুর্নীতির হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে। কারও অপকর্মগুলো তুলে ধরলেই এই আইনে মামলা করছে তারা। অবিলম্বে এই আইন বাতিলের দাবি জানানোর পাশাপাশি রাবি ক্যাম্পাসে কর্মরত সহকর্মীদের বিরুদ্ধে করা মিথ্যা মামলা এবং অভিযোগ প্রত্যাহারের জোর দাবি জানাচ্ছি।

কর্মসূচিতে রাবি প্রেসক্লাবের সভাপতি সালমান শাকিল বলেন, আমার সব সময়ের দাবি, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় একটি গর্ব করার মতো বিশ্ববিদ্যালয় হোক। তবে কেউ কেউ তার ক্ষমতা প্রকাশের জন্য যা তা করে বসছেন। মামলার হুমকি দিচ্ছেন৷ এরই মধ্যে এক মামলায় রাবি প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মানিক রাইহান বাপ্পী কারাগারে। সেই ঘটনার রেশ না কাটতেই বাংলাদেশ প্রতিদিনের রাবি প্রতিনিধি মর্তুজা নূরের নামে মামলা করতে গিয়েছিলেন। জিডি হিসেবে সেটি জমা হয়েছে। আপনারা ক্ষমতা কাঠামোর এই প্রভাব দেখাতে চাচ্ছেন। তবে বলে রাখা ভালো এই ক্ষমতা কাঠামো খুব বেশি দিনের নয়। আমরা প্রস্তুতি নিয়েই চলি সব সময়। সার্বক্ষণিক প্রস্তুতি রেখেই সংবাদের কাজ করতে হয়। নিজেদের কোন অনিয়মের খবর এবার ঢাকবেন, কি দিয়ে ঢাকবেন, মাছ দিয়ে নাকি শাক দিয়ে সেই প্রস্তুতি রাখার সময় হয়েছে। অস্তিত্ব খোঁজার প্রস্তুতি নিতে শুরু করুন।

রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটির সহ-সভাপতি খুর্শিদ রাজীবের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরো বক্তব্য দেন রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান উপদেষ্টা আহমেদ ফরিদ, সহ-সভাপতি হারুন-অর-রশিদ, রাবি সাংবাদিক সমিতির সাবেক সভাপতি সুজন আলী, রাবি প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক বেলাল হুসাইন বিপ্লব এবং সহ-সভাপতি আকরাম হোসেন।

এর আগে গত শুক্রবার রাবি স্কুল ও কলেজে ‘বিধিবহির্ভূত’ পদন্নোতির সংবাদ প্রকাশের করায় দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের রাবি প্রতিনিধি মর্তুজা নুরের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন ও মানহানির অভিযোগ এনে নগরীর মতিহার থানায় অভিযোগ করেন স্কুলের প্রভাষক রুনা লায়লা। এবং ২০১৫ সালের অক্টোবরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সোহরাওয়ার্দী হলে সিট বরাদ্দ দিতে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অনৈতিকভাবে চাঁদা দাবির অভিযোগ ওঠে ওই হলের আবাসিক শিক্ষক ও কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের অধ্যাপক কাজী জাহিদের বিরুদ্ধে। সেই ঘটনায় রাবির আবাসিক হলে শিক্ষকের বিরুদ্ধে ‘সিট বরাদ্দে চাঁদা দাবির অভিযোগ’ শিরোনামে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে ওই শিক্ষক ক্ষুব্ধ হয়ে বর্তমান ৫৭ ধারায় মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় ১৩ নভেম্বর সন্ধ্যায় চাপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জের নিজ বাসা থেকে গ্রেফতার করা হন সাংবাদিক মানিক রাইহান বাপ্পী। পরে ১৪ নভেম্বর আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। বর্তমানে বাপ্পীর জামিন মঞ্জুর হয়েছে। তিনি কিছু আইনি প্রক্রিয়া শেষে শীঘ্রই ছাড়া পাবেন বলে জানা গেছে।