পূর্বধলায় সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ; গ্রেফতার ৪

প্রকাশিত: ২:২৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৯, ২০২০

পূর্বধলায় সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় দড়ি দিয়ে দোলন খান (৪০) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু, হত্যা সন্দেহে নিহত দোলন খানের স্ত্রী নাছিমা বেগম (৩০), শাশুড়ি শামছুন্নাহার (৬০), শ্যালিকা লাবণ্য (২১) ও মোসাঃ তাজনীন (১৯) নামের ৪জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা সদরের মঙ্গলবাড়িয়া এলাকার মৃত নূরুল ইসলামের বাসা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

পূর্বধলা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. রফিকুল ইসলাম জানান, নিহতের অণ্ডকোষে ও ডান পায়ের গোড়ালীর উপর হালকা আঘাতের চিহ্ন ছিল। এছাড়া বেশ কিছুদিন ধরে তার স্ত্রী, শাশুড়ি ও শ্যালিকাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ চলছিল। তাই এটি হত্যা না আত্মহত্যা এমন সন্দেহে তাদেরকে ফৌজধারী কার্য বিধির ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার করা হয়। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। তদন্ত রির্পোট হাতে এলে জানা যাবে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ।

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা সদরের মঙ্গলবাড়িয়া এলাকা থেকে ফাঁসিতে ঝুলন্ত অবস্থায় দোলন খান নামের ওই ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত দোলন উপজেলার ধলামূলগাঁও ইউনিয়নের ঘাগড়াপাড়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য ছিদ্দিক মিয়ার ছেলে। সে দীর্ঘ দিন যাবত তার স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে উপজেলা সদরের মঙ্গলবাড়িয়া এলাকায় তার শ্বশুর মৃত নূরুল ইসলামের বাসায় থাকতেন। বৃহস্পতিবার সকালে তার স্ত্রী ঘুম থেকে জেগে দেখেন সিলিং ফ্যানের সাথে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলছে তার স্বামী।